ঢাকা ১১:০৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গাংনীতে আবারও অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে গরু ব্যবসায়ী

নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • আপডেট সময় : ১১:৫৩:৪৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুলাই ২০২৩ ১৪৪ বার পড়া হয়েছে

মেহেরপুরের গাংনীতে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে একের পর এক নিঃস্ব হচ্ছেন গরু ব্যবসায়ীরা। আজ শুক্রবার ২১ জুলাই) দুপুরে বামন্দী-নিশিপুর পশু হাটে যাওয়ার সময় দেড়লাখ টাকা খুইয়েছেন আজিম উদ্দীন (৪৫) নামের এক গরু ব্যবসায়ি। মুমূর্ষ অবস্থায় তাকে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

গরু ব্যবসায়ী আজিম উদ্দীন মেহেরপুরের গাংনীর গাড়াডোব মাঠপাড়ার সামসুদ্দীনের ছেলে।

আজিম উদ্দীনের ছেলে রিপন জানান, তার বাবা বামন্দী পশু হাটে গরু কেনার জন্য দেড় লাখ টাকা নিয়ে গাড়াডোব বাজার থেকে বাস যোগে রওনা দেন। বেলা আড়াইটার দিকে বামন্দী থেকে কয়েকজন বাড়িতে ফোন করে বাবা আজিম উদ্দীনের অজ্ঞান হওয়ার খবর দিলে পরিবারের লোকজন তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

আজিম উদ্দীনের ভাতিজা মিঠুন জানান, বাসের মধ্যে অজ্ঞান পার্টির লোকজন কিছু খাওয়ালে চাচা আজিম উদ্দীন জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। দুষ্কৃতিকারীরা তার কাছ থেকে টাকা পয়সা লুট করে। বাসের লোকজন টের পেয়ে তাকে বামন্দী বাস স্ট্যান্ডে নামিয়ে দেয়।

গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে কর্মরত চিকিৎসক সুমাইয়া সীমা জানান, বিষক্রিয়ার কারণে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেছেন আজিমদ্দীন। এ জন্য তার পাকস্থলী ওয়াশ করা হয়। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, এর আগে গেল ২ জুন গাংনী পৌরসভাধীন ফতাইপুর গ্রামের তাহাজ উদ্দীনের ছেলে চাউল ব্যবসায়ী শাহাবুদ্দীন রাজা গাংনী থেকে মেহেরপুর যাওয়ার পথে বাসের মধ্যে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে তিন লাখ টাকা হারান। একই দিনে গাংনী থেকে বামন্দী পশু হাটে যাওয়ার সময় শিশিরপাড়া গ্রামের মৃত এলাহি বক্সের ছেলে গরু ব্যবসায়ী আব্দুর রহমান ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা খোয়ান। শাহাবুদ্দীন রাজা আব্দুর রহমানকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় গাংনী হাসপাতাল থেকে রাজশাহী নেওয়া হয়। সেখানে বেশ কিছুদিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জালড়ে সুস্থ্য হয় রাজা।

এদিকে ২৬ জুন কুষ্টিয়ার মিরপুর থেকে বাসযোগে গাংনীর বামন্দী পশু হাটে আসার সময় তদিুল ইসলাম নামের এক গরু ব্যবসায়ী পড়েন অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে। তাকে অজ্ঞান করে ৬ লাখ টাকা নিয়ে যায় অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় বাস থেকে তেরাইল বাজারে নামিয়ে দেওয়া হয় তহিদুলকে। পরে তার তার স্বজনরা গিয়ে তাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।

গাংনী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক জানান, অজ্ঞান পার্টির সদস্যদের আটক করতে পুলিশের চেষ্টা অব্যহত রয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

গাংনীতে আবারও অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে গরু ব্যবসায়ী

আপডেট সময় : ১১:৫৩:৪৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুলাই ২০২৩

মেহেরপুরের গাংনীতে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে একের পর এক নিঃস্ব হচ্ছেন গরু ব্যবসায়ীরা। আজ শুক্রবার ২১ জুলাই) দুপুরে বামন্দী-নিশিপুর পশু হাটে যাওয়ার সময় দেড়লাখ টাকা খুইয়েছেন আজিম উদ্দীন (৪৫) নামের এক গরু ব্যবসায়ি। মুমূর্ষ অবস্থায় তাকে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

গরু ব্যবসায়ী আজিম উদ্দীন মেহেরপুরের গাংনীর গাড়াডোব মাঠপাড়ার সামসুদ্দীনের ছেলে।

আজিম উদ্দীনের ছেলে রিপন জানান, তার বাবা বামন্দী পশু হাটে গরু কেনার জন্য দেড় লাখ টাকা নিয়ে গাড়াডোব বাজার থেকে বাস যোগে রওনা দেন। বেলা আড়াইটার দিকে বামন্দী থেকে কয়েকজন বাড়িতে ফোন করে বাবা আজিম উদ্দীনের অজ্ঞান হওয়ার খবর দিলে পরিবারের লোকজন তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

আজিম উদ্দীনের ভাতিজা মিঠুন জানান, বাসের মধ্যে অজ্ঞান পার্টির লোকজন কিছু খাওয়ালে চাচা আজিম উদ্দীন জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। দুষ্কৃতিকারীরা তার কাছ থেকে টাকা পয়সা লুট করে। বাসের লোকজন টের পেয়ে তাকে বামন্দী বাস স্ট্যান্ডে নামিয়ে দেয়।

গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে কর্মরত চিকিৎসক সুমাইয়া সীমা জানান, বিষক্রিয়ার কারণে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেছেন আজিমদ্দীন। এ জন্য তার পাকস্থলী ওয়াশ করা হয়। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, এর আগে গেল ২ জুন গাংনী পৌরসভাধীন ফতাইপুর গ্রামের তাহাজ উদ্দীনের ছেলে চাউল ব্যবসায়ী শাহাবুদ্দীন রাজা গাংনী থেকে মেহেরপুর যাওয়ার পথে বাসের মধ্যে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে তিন লাখ টাকা হারান। একই দিনে গাংনী থেকে বামন্দী পশু হাটে যাওয়ার সময় শিশিরপাড়া গ্রামের মৃত এলাহি বক্সের ছেলে গরু ব্যবসায়ী আব্দুর রহমান ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা খোয়ান। শাহাবুদ্দীন রাজা আব্দুর রহমানকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় গাংনী হাসপাতাল থেকে রাজশাহী নেওয়া হয়। সেখানে বেশ কিছুদিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জালড়ে সুস্থ্য হয় রাজা।

এদিকে ২৬ জুন কুষ্টিয়ার মিরপুর থেকে বাসযোগে গাংনীর বামন্দী পশু হাটে আসার সময় তদিুল ইসলাম নামের এক গরু ব্যবসায়ী পড়েন অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে। তাকে অজ্ঞান করে ৬ লাখ টাকা নিয়ে যায় অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় বাস থেকে তেরাইল বাজারে নামিয়ে দেওয়া হয় তহিদুলকে। পরে তার তার স্বজনরা গিয়ে তাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।

গাংনী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক জানান, অজ্ঞান পার্টির সদস্যদের আটক করতে পুলিশের চেষ্টা অব্যহত রয়েছে।