ঢাকা ০৯:৪২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজ:
গাংনীতে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে আহত-৪ মামা বাড়ি’তে এস’এস’সি পরীক্ষায় পাশের মিষ্টি দিয়ে বাড়ি ফেরা হলো না আর দৈনিক ক্রাইম তালাশে নিয়োগ পেলেন আহান্নুর দৈনিক ক্রাইম তালাশে নিয়োগ পেলেন সান মেহেরপুরে’র গোভিপুর গ্রামে স্বামীর হাসুয়ার কোপে স্ত্রী নিহত এমপিদে’র সরকারি বরাদ্দ ফেসবুকে প্রকাশ করেই যাবো মেহেরপুর উপজেলা নির্বাচনে আনারুল ইসলাম ও আমাম হোসেন মিলু নির্বাচিত মেহের’পুরে নিয়ম বহির্ভূত’ভাবে স্কুলের গাছ বিক্রি মেহেরপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কেন্দ্রে কেন্দ্রে সরঞ্জাম প্রেরণ গাংনী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগে

গাংনী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগে

নিউজ ডেস্ক:
  • আপডেট সময় : ০২:১৭:৪৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৯ এপ্রিল ২০২৪ ৭৪ বার পড়া হয়েছে

মেহেরপুরের গাংনী থানাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহাবুবুল আলম কাজলের বিরুদ্ধে চার ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে, লিখিত অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগীর পরিবার। গতকাল রবিবার(২৮ এপ্রিল) গাংনী উপজেলার নির্বাহী অফিসার বরাবর এ লিখিত অভিযোগ করেন।

লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গাংনী থানাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহাবুবুল আলম কাজল বেশ কয়েকজন ছাত্র-ছাত্রী নিয়ে তার বাড়িতে প্রাইভেট পড়ান। রোববার(২৮ এপ্রিল) ভোর সাড়ে ৫ থেকে সাড়ে ৬টা পর্যন্ত প্রাইভেট পড়ান। যে সকল শিক্ষার্থীরা দেখতে সুন্দর তাদেরকে বিভিন্নভাবে পড়ানোর নাম করে শ্লীলতাহানির করেন। জ্যামিতি শিখানোর নাম করে ছাত্রীদের জড়িয়ে ধরেন ও স্পর্শকাতিস্থানে হাত দেন। শিক্ষার্থীরা এসব ঘটনা যদি তাদের অভিভাবকদের বলেন তাহলে পরীক্ষায় ফেল করে দেওয়ার হুমকি ধামকি দেন বলে ওই লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

এ বিষয়ে এক ছাত্রীর বাবা জানান, আমাকে চাপ প্রয়োগ করে উপজেলা চেয়ারম্যান এম এ খালেকের অফিসে নিয়ে জোরপূর্বক স্বাক্ষর করে নেয় কাজল মাস্টারের লোকজন। সময় অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকেরাও জড়িত ছিলেন। অন্য অভিভাবকেরা শিক্ষক কাজলের ভাইয়ের মুখ খুলতে রাজি হননি।

অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক মাহাবুবুল আলম কাজলের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

গাংনী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি পারভেজ সাজ্জাদ রাজা জানান, ইউএনও স্যার বরাবর ভুক্তভোগির পরিবারেরা লিখিত অভিযোগ করেছেন। শিক্ষক সহ ভুক্তভোগীর পরিবাররা বসে লিখিত অভিযোগ উত্তোলন করে নিয়েছেন। ইউএনও স্যার নিজের তদন্ত করে যদি কাজল দোষী হয় তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে বলে জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান এম এ খালেক এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, শিক্ষক সমিতির লোকজন অন্যত্র সমস্যার সমাধান করে কেবলমাত্র আমার সাথে দেখা করতে গিয়েছিল। আমার অফিসে কোন মীমাংসা হয়নি।

গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রীতম সাহা জানান, যেসব ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করেছিলেন তারা আজকে আবার অভিযোগ উত্তোলন করে নিয়ে গেছেন এখন বর্তমানে তাদের কোন আর অভিযোগ নেই।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

গাংনী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগে

আপডেট সময় : ০২:১৭:৪৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৯ এপ্রিল ২০২৪

মেহেরপুরের গাংনী থানাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহাবুবুল আলম কাজলের বিরুদ্ধে চার ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে, লিখিত অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগীর পরিবার। গতকাল রবিবার(২৮ এপ্রিল) গাংনী উপজেলার নির্বাহী অফিসার বরাবর এ লিখিত অভিযোগ করেন।

লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গাংনী থানাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহাবুবুল আলম কাজল বেশ কয়েকজন ছাত্র-ছাত্রী নিয়ে তার বাড়িতে প্রাইভেট পড়ান। রোববার(২৮ এপ্রিল) ভোর সাড়ে ৫ থেকে সাড়ে ৬টা পর্যন্ত প্রাইভেট পড়ান। যে সকল শিক্ষার্থীরা দেখতে সুন্দর তাদেরকে বিভিন্নভাবে পড়ানোর নাম করে শ্লীলতাহানির করেন। জ্যামিতি শিখানোর নাম করে ছাত্রীদের জড়িয়ে ধরেন ও স্পর্শকাতিস্থানে হাত দেন। শিক্ষার্থীরা এসব ঘটনা যদি তাদের অভিভাবকদের বলেন তাহলে পরীক্ষায় ফেল করে দেওয়ার হুমকি ধামকি দেন বলে ওই লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

এ বিষয়ে এক ছাত্রীর বাবা জানান, আমাকে চাপ প্রয়োগ করে উপজেলা চেয়ারম্যান এম এ খালেকের অফিসে নিয়ে জোরপূর্বক স্বাক্ষর করে নেয় কাজল মাস্টারের লোকজন। সময় অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকেরাও জড়িত ছিলেন। অন্য অভিভাবকেরা শিক্ষক কাজলের ভাইয়ের মুখ খুলতে রাজি হননি।

অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক মাহাবুবুল আলম কাজলের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

গাংনী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি পারভেজ সাজ্জাদ রাজা জানান, ইউএনও স্যার বরাবর ভুক্তভোগির পরিবারেরা লিখিত অভিযোগ করেছেন। শিক্ষক সহ ভুক্তভোগীর পরিবাররা বসে লিখিত অভিযোগ উত্তোলন করে নিয়েছেন। ইউএনও স্যার নিজের তদন্ত করে যদি কাজল দোষী হয় তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে বলে জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান এম এ খালেক এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, শিক্ষক সমিতির লোকজন অন্যত্র সমস্যার সমাধান করে কেবলমাত্র আমার সাথে দেখা করতে গিয়েছিল। আমার অফিসে কোন মীমাংসা হয়নি।

গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রীতম সাহা জানান, যেসব ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করেছিলেন তারা আজকে আবার অভিযোগ উত্তোলন করে নিয়ে গেছেন এখন বর্তমানে তাদের কোন আর অভিযোগ নেই।