ঢাকা ০৮:০৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সড়কে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত-৪

নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • আপডেট সময় : ০৬:৫০:৪১ অপরাহ্ন, রবিবার, ৪ জুন ২০২৩ ২৩৩ বার পড়া হয়েছে

তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মেহেরপুর শহরের ওয়াবদা সড়কে প্রতিপক্ষের হামলায় মোঃ মাহফিল (২৮),আলমগীর (৩৫), রতন(৪৫)
এবং চঞ্চল (১৯) নামের ৪ জন আহত হয়েছে। দুটি দোকান ভাঙচুর। প্রতিবাদে পৌর ঈদগা গেট ব্যবসায়ীরা দোকান বন্ধ রেখে প্রতিবাদ করছে।

আহতদের মেহেরপুর-২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। রবিবার বিকালের দিকে এ হামলার ঘটনা ঘটে। আহত মোঃ মাহফিল মেহেরপুর শহরের চক্রপাড়ার ইয়ারুল ইসলামের ছেলে। আলমগীর মুজিবনগর উপজেলার আনন্দবাস গ্রামের সবুরের ছেলে।রতন নওগাঁর খলিলুর রহমানের ছেলে। এবং চঞ্চল চক্রপাড়ার মনিরুলের ছেলে।জানা গেছে ঘটনার সময় চৌকি বহন করা একটি রিকশায় এক পথচারী আহত হয়।

এ সময় পৌর ঈদগা গেট ব্যবসায়ীরা এর প্রতিবাদ করে। পরে ফৌজদারীপাড়ার মোহনের ছেলে মুন্নার নেতৃত্বে একই এলাকার মোহন, মুবিন, মুকিম,শান্তসহ ১০-১২ যুবক লাঠি সোটা নিয়ে পৌর ঈদগা গেট বাজারে ভাই ভাই ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপ এবং রসুলের চায়ের দোকানে হামলা চালায়।

এ সময় দোকান মালিক ও কর্মচারীরা বাধা দিতে আসলে তাদের উপর আক্রমণ চালানো হয়। এতে ওই ৪ ব্যক্তি আহত হয়। এ ঘটনায় মেহেরপুর সদর থানায় একটি অভিযোগ দাখিল করা হয়েছে বলে জানা গেছে। দোকান ভাঙচুর প্রতিবাদে পৌর ঈদগা গেট ব্যবসায়ীরা দোকান বন্ধ রেখে প্রতিবাদ করছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সড়কে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত-৪

আপডেট সময় : ০৬:৫০:৪১ অপরাহ্ন, রবিবার, ৪ জুন ২০২৩

তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মেহেরপুর শহরের ওয়াবদা সড়কে প্রতিপক্ষের হামলায় মোঃ মাহফিল (২৮),আলমগীর (৩৫), রতন(৪৫)
এবং চঞ্চল (১৯) নামের ৪ জন আহত হয়েছে। দুটি দোকান ভাঙচুর। প্রতিবাদে পৌর ঈদগা গেট ব্যবসায়ীরা দোকান বন্ধ রেখে প্রতিবাদ করছে।

আহতদের মেহেরপুর-২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। রবিবার বিকালের দিকে এ হামলার ঘটনা ঘটে। আহত মোঃ মাহফিল মেহেরপুর শহরের চক্রপাড়ার ইয়ারুল ইসলামের ছেলে। আলমগীর মুজিবনগর উপজেলার আনন্দবাস গ্রামের সবুরের ছেলে।রতন নওগাঁর খলিলুর রহমানের ছেলে। এবং চঞ্চল চক্রপাড়ার মনিরুলের ছেলে।জানা গেছে ঘটনার সময় চৌকি বহন করা একটি রিকশায় এক পথচারী আহত হয়।

এ সময় পৌর ঈদগা গেট ব্যবসায়ীরা এর প্রতিবাদ করে। পরে ফৌজদারীপাড়ার মোহনের ছেলে মুন্নার নেতৃত্বে একই এলাকার মোহন, মুবিন, মুকিম,শান্তসহ ১০-১২ যুবক লাঠি সোটা নিয়ে পৌর ঈদগা গেট বাজারে ভাই ভাই ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপ এবং রসুলের চায়ের দোকানে হামলা চালায়।

এ সময় দোকান মালিক ও কর্মচারীরা বাধা দিতে আসলে তাদের উপর আক্রমণ চালানো হয়। এতে ওই ৪ ব্যক্তি আহত হয়। এ ঘটনায় মেহেরপুর সদর থানায় একটি অভিযোগ দাখিল করা হয়েছে বলে জানা গেছে। দোকান ভাঙচুর প্রতিবাদে পৌর ঈদগা গেট ব্যবসায়ীরা দোকান বন্ধ রেখে প্রতিবাদ করছে।