ঢাকা ০৯:৩২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জীবিকার তাগিদে প্রবাস গিয়ে, সাতাশ বছর পর বাড়ী ফিরলেন লাশ হয়ে

নিউজ ডেস্ক:
  • আপডেট সময় : ০১:১০:৫২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৮ ডিসেম্বর ২০২৩ ১২২৫ বার পড়া হয়েছে

মেহেরপুর প্রেস:

জীবন ও জীবিকার তাগিদে ভাগ্যের চাকা ঘুরাতে মালয়েশিয়া গিয়ে সাতাশ বছর পর লাশ হয়ে বাড়ী ফিরলেন আঃ আজিজ (৫৮)। তিনি মেহেরপুর সদর উপজেলার বলিয়ারপুর গ্রামের মৃত ফয়জদ্দীন আলীর ছেলে। পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, আঃ আজিজ সুদীর্ঘ সাতাশ বছর যাবৎ মালয়েশিয়া প্রবাসী।

সেখানে তিনি পেইন্টার হিসেবে কাজ করতেন। তার কর্মকালীন সময়ে চৌদ্দ দিন আগে তিনি স্ট্রোক করেন। তারপর থেকেই তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। এর আগেও তিনি দুইবার স্ট্রোক করেছিলেন বলে জানান তার একমাত্র পুত্র এইচ বাঁধন। দেশে ফেরার জন্য তিনি গত ৪ ডিসেম্বর ফিঙার দিতে মালয়েশিয়ায় অবস্থিত বাংলাদেশী এম্বাসীতে যান। এবং সেখানেই তিনি মৃত্যু বরণ করেন। গত ৭ ডিসেম্বর রাত দশটায় তার লাশ ঢাকা এসে পৌঁছে। পরে পরিবারের লোকজন গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে সাতটায় তার লাশ নিয়ে গ্রামে পৌছায়।

প্রিয় জনের মুখ টি একনজর দেখার জন্য ভিড় করে স্বজন ও প্রতিবেশীরা। আঃ আজিজ দুই মেয়ে ও এক ছেলের জনক ছিলেন। একমাত্র ছোট ছেলে এইচ বাঁধন সহি উদ্দীন ডিগ্রি কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মেয়েরা বিবাহিত। গতকাল বাদ জুম্মা জানাযা নামাজ শেষে গ্রাম্য কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

জীবিকার তাগিদে প্রবাস গিয়ে, সাতাশ বছর পর বাড়ী ফিরলেন লাশ হয়ে

আপডেট সময় : ০১:১০:৫২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৮ ডিসেম্বর ২০২৩

মেহেরপুর প্রেস:

জীবন ও জীবিকার তাগিদে ভাগ্যের চাকা ঘুরাতে মালয়েশিয়া গিয়ে সাতাশ বছর পর লাশ হয়ে বাড়ী ফিরলেন আঃ আজিজ (৫৮)। তিনি মেহেরপুর সদর উপজেলার বলিয়ারপুর গ্রামের মৃত ফয়জদ্দীন আলীর ছেলে। পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, আঃ আজিজ সুদীর্ঘ সাতাশ বছর যাবৎ মালয়েশিয়া প্রবাসী।

সেখানে তিনি পেইন্টার হিসেবে কাজ করতেন। তার কর্মকালীন সময়ে চৌদ্দ দিন আগে তিনি স্ট্রোক করেন। তারপর থেকেই তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। এর আগেও তিনি দুইবার স্ট্রোক করেছিলেন বলে জানান তার একমাত্র পুত্র এইচ বাঁধন। দেশে ফেরার জন্য তিনি গত ৪ ডিসেম্বর ফিঙার দিতে মালয়েশিয়ায় অবস্থিত বাংলাদেশী এম্বাসীতে যান। এবং সেখানেই তিনি মৃত্যু বরণ করেন। গত ৭ ডিসেম্বর রাত দশটায় তার লাশ ঢাকা এসে পৌঁছে। পরে পরিবারের লোকজন গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে সাতটায় তার লাশ নিয়ে গ্রামে পৌছায়।

প্রিয় জনের মুখ টি একনজর দেখার জন্য ভিড় করে স্বজন ও প্রতিবেশীরা। আঃ আজিজ দুই মেয়ে ও এক ছেলের জনক ছিলেন। একমাত্র ছোট ছেলে এইচ বাঁধন সহি উদ্দীন ডিগ্রি কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মেয়েরা বিবাহিত। গতকাল বাদ জুম্মা জানাযা নামাজ শেষে গ্রাম্য কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হয়।