ঢাকা ১০:২৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজ:
গাংনীতে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে আহত-৪ মামা বাড়ি’তে এস’এস’সি পরীক্ষায় পাশের মিষ্টি দিয়ে বাড়ি ফেরা হলো না আর দৈনিক ক্রাইম তালাশে নিয়োগ পেলেন আহান্নুর দৈনিক ক্রাইম তালাশে নিয়োগ পেলেন সান মেহেরপুরে’র গোভিপুর গ্রামে স্বামীর হাসুয়ার কোপে স্ত্রী নিহত এমপিদে’র সরকারি বরাদ্দ ফেসবুকে প্রকাশ করেই যাবো মেহেরপুর উপজেলা নির্বাচনে আনারুল ইসলাম ও আমাম হোসেন মিলু নির্বাচিত মেহের’পুরে নিয়ম বহির্ভূত’ভাবে স্কুলের গাছ বিক্রি মেহেরপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কেন্দ্রে কেন্দ্রে সরঞ্জাম প্রেরণ গাংনী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগে

মেহেরপুরের নতুন দরবেশপুর উৎসব মুখর পরিবেশে মসজিদের ছাদ ঢালাই

বারাদী নিউজ ডেস্কঃ
  • আপডেট সময় : ০২:১৫:২৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৯ ডিসেম্বর ২০২৩ ১৩৯ বার পড়া হয়েছে

বারাদী নিউজ ডেস্কঃ

 

মেহেরপুর সদর উপজেলার নতুন দরবেশপুর গ্রামে মসজিদের ছাদ ঢালাই উপলক্ষে প্রীতিভোজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (আজ) সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত নতুন দরবেশ পুর জামে মসজিদের তিন হাজার বর্গফুট ছাদ ঢালাই সম্পন্ন হয়। ছাদ ঢালাই উপলক্ষে গ্রামবাসী ও অতিথিসহ প্রায় এক হাজার নারী-পুরুষকে প্রীতিভোজ করানো হয়েছে। নতুন দরবেশপুর জামে মসজিদটি একটি শতবর্ষী মসজিদ। ১৯১৪ সালে মসজিদটি প্রথম প্রতিষ্ঠিত হয়েছিলো, ১৯২৮ সালে ইমারত নির্মাণ হয়। পরবর্তীতে ১৯৮৬ সালে মসজিদের সংস্করণ করা হয়। ধীরে ধীরে মসজিদে মুসুল্লিদের উপস্থিতি বাড়তে থাকে। মুসুল্লিদের জায়গার সংকুলান না হওয়ায় মসজিদ সম্প্রসারণের প্রয়োজন অনুভুত হয়।
মসজিদ কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক ২০২০ সালে ভাঙ্গা হয় পুরাতন মসজিদ টি। পরবর্তীতে মসজিদের ইমাম নিয়োগকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন জটিলতায় বন্ধ হয়ে যায় নির্মাণ কাজ। তৈরি হয় পক্ষ -বিপক্ষ। পরবর্তীতে বিষয়টি চলে যায় ভিন্ন খাতে শুরু হয় জমি নিয়ে বিরোধ। অবশেষে সকল জটিলতার অবসান ঘটিয়ে ২০২৩ সালের নভেম্বরে শুরু হয় নির্মাণ কাজ। বাপ দাদার রেখে যাওয়া স্থানে মসজিদটি পুনরায় নির্মাণ হওয়াতে আনন্দিত ও উচ্ছাসিত হয় গ্রামবাসী। মসজিদের ছাদ ঢালাইকে কেন্দ্র করে গ্রামবাসীর মধ্যে ঈদের আনন্দ বিরাজ করে। সেই আনন্দ ভাগাভাগি করতে গরু জবেহ করে প্রীতিভোজের ব্যবস্থা করেন মসজিদ কমিটি।
মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার কবির সাজু বলেন- মসজিদের ছাদ ঢালাই উপলক্ষে প্রীতিভোজের ব্যবস্থা করা হয়েছে। আমরা মহা আনন্দিত। আমরা দিন-রাত পরিশ্রমের মধ্য দিয়ে দ্রুত সময়ে মসজিদ নির্মাণের কাজ সম্পন্ন করবো-ইনশাআল্লাহ। মসজিদের নিয়মিত মুসল্লী শাহাদত হোসেন বলেন- আমাদের প্রাণের মসজিদ ছিল এটি। নির্মাণ কাজ বন্ধ থাকায় আমরা হতাশায় ভুগছিলাম। আজকে ছাদ ঢালাই সম্পন্ন হওয়ায় গ্রামবাসীর মধ্যে ঈদের আনন্দ বিরাজ করছে। সাইদুর রহমান বলেন মসজিদ নির্মাণের জন্য গ্রামের মহিলারা ত্রিশ হাজার টাকা তুলে দিয়েছে। ছাদ ঢালাই পর্যন্ত প্রায় সত্তর লক্ষ টাকা ব্যয় হয়েছে। পুরো ভবনটি নির্মাণে অনেক টাকার প্রয়োজন এজন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

মেহেরপুরের নতুন দরবেশপুর উৎসব মুখর পরিবেশে মসজিদের ছাদ ঢালাই

আপডেট সময় : ০২:১৫:২৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৯ ডিসেম্বর ২০২৩

বারাদী নিউজ ডেস্কঃ

 

মেহেরপুর সদর উপজেলার নতুন দরবেশপুর গ্রামে মসজিদের ছাদ ঢালাই উপলক্ষে প্রীতিভোজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (আজ) সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত নতুন দরবেশ পুর জামে মসজিদের তিন হাজার বর্গফুট ছাদ ঢালাই সম্পন্ন হয়। ছাদ ঢালাই উপলক্ষে গ্রামবাসী ও অতিথিসহ প্রায় এক হাজার নারী-পুরুষকে প্রীতিভোজ করানো হয়েছে। নতুন দরবেশপুর জামে মসজিদটি একটি শতবর্ষী মসজিদ। ১৯১৪ সালে মসজিদটি প্রথম প্রতিষ্ঠিত হয়েছিলো, ১৯২৮ সালে ইমারত নির্মাণ হয়। পরবর্তীতে ১৯৮৬ সালে মসজিদের সংস্করণ করা হয়। ধীরে ধীরে মসজিদে মুসুল্লিদের উপস্থিতি বাড়তে থাকে। মুসুল্লিদের জায়গার সংকুলান না হওয়ায় মসজিদ সম্প্রসারণের প্রয়োজন অনুভুত হয়।
মসজিদ কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক ২০২০ সালে ভাঙ্গা হয় পুরাতন মসজিদ টি। পরবর্তীতে মসজিদের ইমাম নিয়োগকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন জটিলতায় বন্ধ হয়ে যায় নির্মাণ কাজ। তৈরি হয় পক্ষ -বিপক্ষ। পরবর্তীতে বিষয়টি চলে যায় ভিন্ন খাতে শুরু হয় জমি নিয়ে বিরোধ। অবশেষে সকল জটিলতার অবসান ঘটিয়ে ২০২৩ সালের নভেম্বরে শুরু হয় নির্মাণ কাজ। বাপ দাদার রেখে যাওয়া স্থানে মসজিদটি পুনরায় নির্মাণ হওয়াতে আনন্দিত ও উচ্ছাসিত হয় গ্রামবাসী। মসজিদের ছাদ ঢালাইকে কেন্দ্র করে গ্রামবাসীর মধ্যে ঈদের আনন্দ বিরাজ করে। সেই আনন্দ ভাগাভাগি করতে গরু জবেহ করে প্রীতিভোজের ব্যবস্থা করেন মসজিদ কমিটি।
মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার কবির সাজু বলেন- মসজিদের ছাদ ঢালাই উপলক্ষে প্রীতিভোজের ব্যবস্থা করা হয়েছে। আমরা মহা আনন্দিত। আমরা দিন-রাত পরিশ্রমের মধ্য দিয়ে দ্রুত সময়ে মসজিদ নির্মাণের কাজ সম্পন্ন করবো-ইনশাআল্লাহ। মসজিদের নিয়মিত মুসল্লী শাহাদত হোসেন বলেন- আমাদের প্রাণের মসজিদ ছিল এটি। নির্মাণ কাজ বন্ধ থাকায় আমরা হতাশায় ভুগছিলাম। আজকে ছাদ ঢালাই সম্পন্ন হওয়ায় গ্রামবাসীর মধ্যে ঈদের আনন্দ বিরাজ করছে। সাইদুর রহমান বলেন মসজিদ নির্মাণের জন্য গ্রামের মহিলারা ত্রিশ হাজার টাকা তুলে দিয়েছে। ছাদ ঢালাই পর্যন্ত প্রায় সত্তর লক্ষ টাকা ব্যয় হয়েছে। পুরো ভবনটি নির্মাণে অনেক টাকার প্রয়োজন এজন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।