ঢাকা ০১:২০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মেহেরপুরে দুই শিক্ষককে পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে অব্যহতি

নিজস্ব প্রতিবেদক:
  • আপডেট সময় : ০৩:০৪:২২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ মে ২০২৩ ২২৯ বার পড়া হয়েছে

পরীক্ষা কেন্দ্রে অনিয়ম ও দায়ীত্বে অবহেলার অভিযোগে নাজমুল হক ও আরিফুল ইসলাম নামের দুই শিক্ষককে পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে অব্যহতি দিয়েছেন কেন্দ্র সচিব।

আজ মঙ্গলবার মেহেরপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের ১০৬ নং কক্ষে এই দুই শিক্ষক গণিত পরীক্ষা দায়িত্ব পালন করছিলেন। তারা দুজনেই বাকী পরীক্ষাগুলোতে কোনো দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না।

নাজমুল হক মেহেরপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক ও আরিফুল ইসলাম কালিগাংনী নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক।

মেহেরপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও কেন্দ্র সচিব মিজানুর রহমান বলেন, অভিযুক্ত এই দুই শিক্ষক পরীক্ষার ১০৬ নং কক্ষে দায়িত্ব পালন করছিলেন। পরীক্ষার শুরুতেই তারা দায়িত্বে অবহেলা করে অবজেক্টিভ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র দেরিতে সরবরাহ করেছে। কিন্তু পরে তাদের সেই অপচর সময়টুকু লিখার সুযোগ দেননি। ওই কক্ষের পরীক্ষার্থীরা অভিযোগ দেওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

তবে, অভিযুক্ত শিক্ষকের বক্তব্য নেওয়ার চেষ্টা করেও তাদের পাওয়া যায়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

মেহেরপুরে দুই শিক্ষককে পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে অব্যহতি

আপডেট সময় : ০৩:০৪:২২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ মে ২০২৩

পরীক্ষা কেন্দ্রে অনিয়ম ও দায়ীত্বে অবহেলার অভিযোগে নাজমুল হক ও আরিফুল ইসলাম নামের দুই শিক্ষককে পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে অব্যহতি দিয়েছেন কেন্দ্র সচিব।

আজ মঙ্গলবার মেহেরপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের ১০৬ নং কক্ষে এই দুই শিক্ষক গণিত পরীক্ষা দায়িত্ব পালন করছিলেন। তারা দুজনেই বাকী পরীক্ষাগুলোতে কোনো দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না।

নাজমুল হক মেহেরপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক ও আরিফুল ইসলাম কালিগাংনী নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক।

মেহেরপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও কেন্দ্র সচিব মিজানুর রহমান বলেন, অভিযুক্ত এই দুই শিক্ষক পরীক্ষার ১০৬ নং কক্ষে দায়িত্ব পালন করছিলেন। পরীক্ষার শুরুতেই তারা দায়িত্বে অবহেলা করে অবজেক্টিভ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র দেরিতে সরবরাহ করেছে। কিন্তু পরে তাদের সেই অপচর সময়টুকু লিখার সুযোগ দেননি। ওই কক্ষের পরীক্ষার্থীরা অভিযোগ দেওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

তবে, অভিযুক্ত শিক্ষকের বক্তব্য নেওয়ার চেষ্টা করেও তাদের পাওয়া যায়নি।