ঢাকা ১২:৪৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মেহেরপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মসজিদের মোয়াজ্জেম কুপিয়েছে প্রতিপক্ষ

নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • আপডেট সময় : ০৫:৪৮:৪২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ জুন ২০২৩ ৪১৪ বার পড়া হয়েছে

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মেহেরপুর সদর উপজেলার পিরোজপুর গ্রামে মসজিদের মোয়াজ্জেম শাহাবুদ্দীন আহমেদ (৫৫) কে কুপিয়েছে প্রতিপক্ষরা।

আহত শাহাবুদ্দীন আহমেদ পিরোজপুর গ্রামের মুনসুর আলীর ছেলে।

আজ বৃহস্পতিবার (৮ জুন) বিকালে শাহাবুদ্দীন আহমেদ আযান দেওয়ার উদ্যোশ্যে মসজিদে যাচ্ছিলেন।

এসময় পেছন থেকে এসে ধারালো হাসুয়া দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় ফেলে রেখে পালিয়ে যায় দূর্বৃত্ত তারিকুল ইসলাম। মূমূর্ষ অবস্থায় শাহাবুদ্দীনকে উদ্ধার করে মেহেরপুর ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

জানা গেছে, আহত শাহাবুদ্দীনের সাথে গত কয়েকদিন আগে একই গ্রামের হামিদুল ইসলামের ছেলে তারিকুল ইসলাম সামান্য বচসা হয়। এনিয়ে তারিকুল তাকে মারার হুমকী দিয়ে আসছিল। আজ বিকালে শাহাবুদ্দীন আযান দেওয়ার জন্য মসজিদে যাচ্ছিলেন।

এসময় সে পথিমধ্যে ধারালো অস্ত্র হাসুয়া দিয়ে পেছন থেকে দু পায়ের হাটুর উপরের মাংস পেশিতে কয়েকটি কোপ মারে। এতে শাহাবদ্দীনের দুটি পায়ের মাংস পেশি কেটে যায়। বর্তমানে তাকে মেহেরপুর ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

মেহেরপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মসজিদের মোয়াজ্জেম কুপিয়েছে প্রতিপক্ষ

আপডেট সময় : ০৫:৪৮:৪২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ জুন ২০২৩

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মেহেরপুর সদর উপজেলার পিরোজপুর গ্রামে মসজিদের মোয়াজ্জেম শাহাবুদ্দীন আহমেদ (৫৫) কে কুপিয়েছে প্রতিপক্ষরা।

আহত শাহাবুদ্দীন আহমেদ পিরোজপুর গ্রামের মুনসুর আলীর ছেলে।

আজ বৃহস্পতিবার (৮ জুন) বিকালে শাহাবুদ্দীন আহমেদ আযান দেওয়ার উদ্যোশ্যে মসজিদে যাচ্ছিলেন।

এসময় পেছন থেকে এসে ধারালো হাসুয়া দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় ফেলে রেখে পালিয়ে যায় দূর্বৃত্ত তারিকুল ইসলাম। মূমূর্ষ অবস্থায় শাহাবুদ্দীনকে উদ্ধার করে মেহেরপুর ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

জানা গেছে, আহত শাহাবুদ্দীনের সাথে গত কয়েকদিন আগে একই গ্রামের হামিদুল ইসলামের ছেলে তারিকুল ইসলাম সামান্য বচসা হয়। এনিয়ে তারিকুল তাকে মারার হুমকী দিয়ে আসছিল। আজ বিকালে শাহাবুদ্দীন আযান দেওয়ার জন্য মসজিদে যাচ্ছিলেন।

এসময় সে পথিমধ্যে ধারালো অস্ত্র হাসুয়া দিয়ে পেছন থেকে দু পায়ের হাটুর উপরের মাংস পেশিতে কয়েকটি কোপ মারে। এতে শাহাবদ্দীনের দুটি পায়ের মাংস পেশি কেটে যায়। বর্তমানে তাকে মেহেরপুর ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।