ঢাকা ০৭:৩৩ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সিলেটে ছাদ থেকে পাইপ পড়ে দেলােয়ারের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • আপডেট সময় : ০৭:১৪:৫৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩ জুন ২০২৩ ২৫৪ বার পড়া হয়েছে

সিলেট সিটি করপোরেশন নগর ভবনের নির্মাণ কাজের সময় ছাদ থেকে স্টিলের পাইপ পড়ে এক সেনাসদস্য নিহত হয়েছেন।

শনিবার (৩জুন-২০২৩ ইং) দুপুর ২টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও সিটি করপোরেশনের সূত্রে জানা গেছে, নিহতের নাম দেলওয়ার হোসেন। তিনি সিলেট সেনানিবাসের লেন্স করপোরাল হিসেবে কর্মরত ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ১৭ পদাতিক ডিভিশনের ৫০ ফিল্ড আর্টিলারির সদস্য। তার গ্রামের বাড়ি মেহেরপুর জেলার গাংনী উপজেলার রাইপুর গ্রামে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, কোনো নিরাপত্তাব্যবস্থা ছাড়াই নগরভবনের উর্ধ্বমূখী সম্প্রসারণ কাজ চলছিল। দুপুর ২টার দিকে নগর ভবনের পাশে সিটি সুপার মার্কেটে কেনাকাটা করছিলেন দেলওয়ার হোসেন। সেসময় ভবনের ওপর থেকে একটি স্টিলের পাইপ তার মাথায় পড়লে তিনি গুরুতর আহত হন।

তাকে দ্রুত সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) সুদীপ দাস বলেন, ‘এ ঘটনায় নগর ভবনের নির্মাণকাজে জড়িত জামাল অ্যান্ড কোং এর ৯ জনকে আটক করা হয়েছে।’
তবে তাদের পরিচয় এখনো জানা যায়নি।

এদিকে এ ঘটনায় ৭ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করছে সিলেট সিটি করপোরেশন। তদন্ত কমিটিকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) জনসংযোগ কর্মকর্তা আব্দুল আলীম শাহ।

তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে সিসিকের প্রধান প্রকৌশলী নুর আজিজুর রহমানকে। অন্যান্য সদস্যরা হলেন গণপূর্ত বিভাগ সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলী ‍রিপন কুমার রায়, সিসিকের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আলী আকবর, শিক্ষা ও প্রকৌশল অধিদপ্তর সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলী নজরুল হাকিম, সিসিকের প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মো. মতিউর রহমান খান, সিসিকের নির্বাহী প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) রুহুল আলম ও সিসিকের নির্বাহী প্রকৌশলী রাজি উদ্দিন খান।

জানতে চাইলে সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, ‘এ ঘটনায় আমি মর্মাহত। ঘটনা তদন্তে ৭ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে যারা ৭২ ঘণ্টার মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেবেন। তদন্ত রিপোর্ট অনুযায়ী দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

সিলেটে ছাদ থেকে পাইপ পড়ে দেলােয়ারের মৃত্যু

আপডেট সময় : ০৭:১৪:৫৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৩ জুন ২০২৩

সিলেট সিটি করপোরেশন নগর ভবনের নির্মাণ কাজের সময় ছাদ থেকে স্টিলের পাইপ পড়ে এক সেনাসদস্য নিহত হয়েছেন।

শনিবার (৩জুন-২০২৩ ইং) দুপুর ২টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও সিটি করপোরেশনের সূত্রে জানা গেছে, নিহতের নাম দেলওয়ার হোসেন। তিনি সিলেট সেনানিবাসের লেন্স করপোরাল হিসেবে কর্মরত ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ১৭ পদাতিক ডিভিশনের ৫০ ফিল্ড আর্টিলারির সদস্য। তার গ্রামের বাড়ি মেহেরপুর জেলার গাংনী উপজেলার রাইপুর গ্রামে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, কোনো নিরাপত্তাব্যবস্থা ছাড়াই নগরভবনের উর্ধ্বমূখী সম্প্রসারণ কাজ চলছিল। দুপুর ২টার দিকে নগর ভবনের পাশে সিটি সুপার মার্কেটে কেনাকাটা করছিলেন দেলওয়ার হোসেন। সেসময় ভবনের ওপর থেকে একটি স্টিলের পাইপ তার মাথায় পড়লে তিনি গুরুতর আহত হন।

তাকে দ্রুত সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) সুদীপ দাস বলেন, ‘এ ঘটনায় নগর ভবনের নির্মাণকাজে জড়িত জামাল অ্যান্ড কোং এর ৯ জনকে আটক করা হয়েছে।’
তবে তাদের পরিচয় এখনো জানা যায়নি।

এদিকে এ ঘটনায় ৭ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করছে সিলেট সিটি করপোরেশন। তদন্ত কমিটিকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) জনসংযোগ কর্মকর্তা আব্দুল আলীম শাহ।

তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে সিসিকের প্রধান প্রকৌশলী নুর আজিজুর রহমানকে। অন্যান্য সদস্যরা হলেন গণপূর্ত বিভাগ সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলী ‍রিপন কুমার রায়, সিসিকের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আলী আকবর, শিক্ষা ও প্রকৌশল অধিদপ্তর সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলী নজরুল হাকিম, সিসিকের প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মো. মতিউর রহমান খান, সিসিকের নির্বাহী প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) রুহুল আলম ও সিসিকের নির্বাহী প্রকৌশলী রাজি উদ্দিন খান।

জানতে চাইলে সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, ‘এ ঘটনায় আমি মর্মাহত। ঘটনা তদন্তে ৭ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে যারা ৭২ ঘণ্টার মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেবেন। তদন্ত রিপোর্ট অনুযায়ী দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’