1. admin@meherpurpress.com : admin :
কোদালের কোপে বেরিয়ে এল ৮৫০ কোটি টাকার রত্নপাথর - মেহেরপুর প্রেস
বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:২৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
মেহেরপুর পৌর কবরস্থান জামে মসজিদের সংস্কার কাজের উদ্বোধন উদ্বোধন মেহেরপুর জেলা পরিষদের উদ্যোগে সাহারবাটি ইউনিয়নের ৩৬ জন পেলো সেলাই মেশিন মেহেরপুর ইম্প্যাক্ট নার্সিং ইনস্টিটিউটে ফুড ফেয়ার অনুষ্ঠানের আয়োজন মুক্তিযুদ্ধকালীন স্মৃতিগুলো মুজিবনগরে তুলে ধরা হবে–জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী মেহেরপুর থানা পুলিশের অভিযানে ০৪ গ্রাম হেরোইনসহ আটক ০১ ২৪ ঘন্টায় মেহেরপুরে করোনায় আক্রান্ত ১ মোনাখালী কৃষক লীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল অনুষ্ঠিত মেহেরপুর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের অভিযানে গাঁজাসহ মিনা আটক গ্রাম পুলিশের নেতৃবৃন্দের সাথে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী সৌজন্য সাক্ষাৎ মেহেরপুর গড়ের মসজিদ কমিটির নেতৃবৃন্দের জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী সাথে সৌজন্যে সাক্ষাৎ

কোদালের কোপে বেরিয়ে এল ৮৫০ কোটি টাকার রত্নপাথর

নিউজ ডেস্ক
  • Update Time : বুধবার, ২৮ জুলাই, ২০২১
  • ১১৩ Time View

বাড়ির পেছনেই চলছিল কূপ খননের কাজ। হঠাৎ শ্রমিকদের কোদালের কোপে বের হয়ে আসলো বিশাল পাথরের খণ্ড। যা কোনো সাধারণ পাথর নয়। বিষয়টি বুঝতে পেরে খবর পাঠানো হয় রত্ন বিশেষজ্ঞদের। তাদের কথায় চোখ কপালে ওঠে সবার। এ তো পাথর নয়। মূল্যবান নীলার বিশাল একটি খণ্ড। বিশ্বে এর আগে এত বড় নীলার সন্ধান মেলেনি। সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।
ঘটনাটি ঘটেছে শ্রীলঙ্কার রত্নপুরা এলাকার একটি বাড়িতে। সেখানে কূপ খননের সময় মাটি খুঁড়ে সন্ধান পাওয়া নীলার খণ্ডটি ২৫ লাখ ক্যারেটের। কেজির হিসাবে যার ওজন প্রায় ৫১০ কিলোগ্রাম। প্রাথমিকভাবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আন্তর্জাতিক বাজারে ফ্যাকাশে নীল রঙের এ রত্নের দাম ১০ কোটি মার্কিন ডলার (বাংলাদেশি টাকায় ৮৫০ কোটি টাকার বেশি) ছাড়িয়ে যেতে পারে।

নিরাপত্তার স্বার্থে ওই বাড়ির মালিকের নাম প্রকাশ করা হয়নি। তবে তিনি জানান, রত্নখণ্ডটির উপরিভাগ থেকে কাদা ও ময়লা পরিষ্কার করতে এক বছর লেগে যেতে পারে। এরপরই মূল্যবান রত্নটির স্বীকৃতির জন্য উদ্যোগ নেয়া হবে।

শ্রীলঙ্কার অন্যতম রফতানি পণ্য রত্নপাথর। আর রত্ন উত্তোলন ও এর ব্যবসার কেন্দ্র হিসেবে পরিচিত রত্নপুরা এলাকা। সিংহলি ভাষায় রত্নপুরা মানে হলো যেখানে মূল্যবান রত্নপাথর বিক্রি করা হয়। সন্ধান পাওয়া নীলাটির বিষয়ে রত্নপাথর বিশেষজ্ঞ জামিনি জয়সা বলেন, আমি এর আগে এত বড় নীলা দেখিনি। প্রায় ৪০ কোটি বছর আগে রত্নখণ্ডটি তৈরি হয়ে থাকতে পারে। আশা করছি ব্যক্তিগত সংগ্রাহক কিংবা জাদুঘরের কাছে এটি বিক্রি করা সম্ভব হবে।

উল্লেখ্য, করোনা মহামারি ও লকডাউনের কারণে শ্রীলঙ্কার রত্নপাথর উত্তোলন ও ব্যবসায় ভাটা পড়েছে। এ পরিস্থিতিতে বিশ্বের সবচেয়ে বড় নীলাখণ্ডের সন্ধান পাওয়ায় খাতসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের মনে খুশির বন্যা বইছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© মেহেরপুর প্রেস কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। নির্মাণ করেছেনঃ WooHostBD
Theme Customized BY LatestNews