ঢাকা ০৯:৫৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজ:
গাংনীতে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে আহত-৪ মামা বাড়ি’তে এস’এস’সি পরীক্ষায় পাশের মিষ্টি দিয়ে বাড়ি ফেরা হলো না আর দৈনিক ক্রাইম তালাশে নিয়োগ পেলেন আহান্নুর দৈনিক ক্রাইম তালাশে নিয়োগ পেলেন সান মেহেরপুরে’র গোভিপুর গ্রামে স্বামীর হাসুয়ার কোপে স্ত্রী নিহত এমপিদে’র সরকারি বরাদ্দ ফেসবুকে প্রকাশ করেই যাবো মেহেরপুর উপজেলা নির্বাচনে আনারুল ইসলাম ও আমাম হোসেন মিলু নির্বাচিত মেহের’পুরে নিয়ম বহির্ভূত’ভাবে স্কুলের গাছ বিক্রি মেহেরপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কেন্দ্রে কেন্দ্রে সরঞ্জাম প্রেরণ গাংনী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগে

মেহেরপুরের গোভীপুর ভৈরব ক্লাব কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ম্যাচ ফিক্সিং

নিউজ ডেস্ক:
  • আপডেট সময় : ০৫:১১:৩১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২২ অগাস্ট ২০২৩ ৪৬২ বার পড়া হয়েছে

ম্যাচ ফিক্সিং এর অভিযোগে দর্শকদের বিক্ষোভ প্রদর্শন। দুই দলের খেলোয়াড় লাঞ্ছিত হয়েছে । ৩য় কোয়ার্টার ফাইনাল খেলা পন্ড হয়ে গেছে। মঙ্গলবার বিকেলে মেহেরপুর সদর উপজেলার গোভীপুর বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত ৬ষ্ট ভৈরব ক্লাব কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ৩য় কোয়ার্টার ফাইনাল খেলা চলাকালীন দর্শকদের নারকীয় ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে ৩য় কোয়াটার ফাইনাল খেলায় গাংনীর চৌগাছা ইয়াং স্টার এবং ধলা একাদশ একে অপরের সঙ্গে মোকাবেলা করে। খেলা শুরুর প্রাক্কালে দু দলের খেলোয়াড়দের দেখে দর্শকরা সন্দেহ পোষণ করেন।  প্রথম রাউন্ড এবং দ্বিতীয় রাউন্ডের খেলায় চৌগাছা ইয়াং স্টার এবং ধলা একাদশ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে খেলোয়াড় এনে দুটি দল পৃথক পৃথকভাবে জয়লাভ করে কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে।

এদিকে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলায় দুটি দলই বহিরাগত কোন খেলার না এনে এলাকার খেলোয়াড়দের নিয়ে মাঠে নামেন। চৌগাছা ইয়াং স্টার ক্লাব কর্তৃপক্ষ ধলা একাদশের কর্মকর্তাদের সাথে গোপন আঁতাত করে অর্থের বিনিময়ে ম্যাচ ফিক্সিং করেন। যাতে করে চৌগাছা অনায়াসে সেমিফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে পারে।

ম্যাচ ফিক্সিং এর কারণে ধলা একাদশের পাশাপাশি চৌগাছা ইয়াং স্টারও সাধারণ মানের খেলোয়াড়দের নিয়ে মাঠে উপস্থিত হন। খেলা শুরু হওয়ার পর থেকেই প্রত্যেকটি খেলোয়াড়ের গা ছাড়া ভাব দেখে দর্শকদের মধ্যে সন্দেহ শুরু হয়। খেলা চলাকালীন সময়ে চৌগাছা ইয়াং স্টার এর এক কর্মকর্তাকে ধাওয়া করলে সে মাঠ থেকে পালিয়ে যান।

এদিকে খেলার প্রথমার্ধের প্রায় ২০ মিনিট অতিবাহিত হওয়ার পর পরই চতুর পাশ থেকে দর্শক মাঠে প্রবেশ করে উভয় দলের খেলোয়াড়দের মারধর করা শুরু করে। এ সময় খেলোয়াড়রা জার্সি খুলে প্রাণভয়ে দিক বিদিক ছোটাছুটি করতে থাকেন। প্রায় দশ মিনিট যাবত মাঠে দর্শকদের এই তাণ্ডবের পরপরই পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

আপলোডকারীর তথ্য
ট্যাগস :

মেহেরপুরের গোভীপুর ভৈরব ক্লাব কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ম্যাচ ফিক্সিং

আপডেট সময় : ০৫:১১:৩১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২২ অগাস্ট ২০২৩

ম্যাচ ফিক্সিং এর অভিযোগে দর্শকদের বিক্ষোভ প্রদর্শন। দুই দলের খেলোয়াড় লাঞ্ছিত হয়েছে । ৩য় কোয়ার্টার ফাইনাল খেলা পন্ড হয়ে গেছে। মঙ্গলবার বিকেলে মেহেরপুর সদর উপজেলার গোভীপুর বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত ৬ষ্ট ভৈরব ক্লাব কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ৩য় কোয়ার্টার ফাইনাল খেলা চলাকালীন দর্শকদের নারকীয় ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে ৩য় কোয়াটার ফাইনাল খেলায় গাংনীর চৌগাছা ইয়াং স্টার এবং ধলা একাদশ একে অপরের সঙ্গে মোকাবেলা করে। খেলা শুরুর প্রাক্কালে দু দলের খেলোয়াড়দের দেখে দর্শকরা সন্দেহ পোষণ করেন।  প্রথম রাউন্ড এবং দ্বিতীয় রাউন্ডের খেলায় চৌগাছা ইয়াং স্টার এবং ধলা একাদশ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে খেলোয়াড় এনে দুটি দল পৃথক পৃথকভাবে জয়লাভ করে কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে।

এদিকে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলায় দুটি দলই বহিরাগত কোন খেলার না এনে এলাকার খেলোয়াড়দের নিয়ে মাঠে নামেন। চৌগাছা ইয়াং স্টার ক্লাব কর্তৃপক্ষ ধলা একাদশের কর্মকর্তাদের সাথে গোপন আঁতাত করে অর্থের বিনিময়ে ম্যাচ ফিক্সিং করেন। যাতে করে চৌগাছা অনায়াসে সেমিফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে পারে।

ম্যাচ ফিক্সিং এর কারণে ধলা একাদশের পাশাপাশি চৌগাছা ইয়াং স্টারও সাধারণ মানের খেলোয়াড়দের নিয়ে মাঠে উপস্থিত হন। খেলা শুরু হওয়ার পর থেকেই প্রত্যেকটি খেলোয়াড়ের গা ছাড়া ভাব দেখে দর্শকদের মধ্যে সন্দেহ শুরু হয়। খেলা চলাকালীন সময়ে চৌগাছা ইয়াং স্টার এর এক কর্মকর্তাকে ধাওয়া করলে সে মাঠ থেকে পালিয়ে যান।

এদিকে খেলার প্রথমার্ধের প্রায় ২০ মিনিট অতিবাহিত হওয়ার পর পরই চতুর পাশ থেকে দর্শক মাঠে প্রবেশ করে উভয় দলের খেলোয়াড়দের মারধর করা শুরু করে। এ সময় খেলোয়াড়রা জার্সি খুলে প্রাণভয়ে দিক বিদিক ছোটাছুটি করতে থাকেন। প্রায় দশ মিনিট যাবত মাঠে দর্শকদের এই তাণ্ডবের পরপরই পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।